গাজীপুরের শ্রীপুরে আমেরিকা থেকে এক তরুণী প্রেমের টানে প্রেমিকের কাছে ছুটে এসেছেন।

গাজীপুরের শ্রীপুরে আমেরিকা থেকে এক তরুণী প্রেমের টানে প্রেমিকের কাছে ছুটে এসেছেন

ঈদের দিন (১০ জুলাই) রাতে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাকে বরণ করা হয়েছে। উপজেলার কেন্দুয়া কুমারপাড়া এলাকার মৃত স্কুল শিক্ষক আহসান উল্লাহ খানের ছেলে ইমরান হোসেন খানের সাথে সামাজিক যোগাযোগেরমাধ্যমে তাদের পরিচয় হয়। এর পর তাদের মধ্যে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে উঠে। আমেরিকান তরুণী গ্রামের ছেলের প্রেমের টানে ছুটে আসাতে সাধারণ মানুষের মাঝে অন্যরকম উচ্ছ্বাস-আনন্দ দেখা দিয়েছে। আশপাশের প্রতেবেশীরা আমেরিকান তরুণী বউ দেখতে বাড়িতে ভিড় করছেন। সে তরুণী আমেরিকান অঙ্গরাজ্য এরিজোনার বাসিন্দা। তার নাম লায়ডা এ লোজা।

 

বিয়ের পরে নাম রাখা হয়েছে লায়ডা এ লোজা খান। স্বজনরা জানান, বেশ কিছু দিন আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে তাদের পরিচয় হয়। এর পর তাদের মাঝে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে উঠে। চলে তাদের যোগাযোগ। এর আগেও একবার দেশে আসতে গিয়ে বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন জটিলতায় আসতে পারেনি। কোভিড জটিলতায় ইমিগ্রশেন বিভাগ তাকে আটকে দেয়। পরে সব সমস্যা আইনি জটিলতা সমাধান হলে রবিবার রাতে ঢাকা শাহজালাল আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দরে ল্যান্ড করেন।

 

 

পরে ভোরে বাড়িতে আসেন তারা।প্রতিবেশীরা জানান, তাদের গ্রামে হাজার মাইল দূরের আমেরিকা থেকে এক তরুণী প্রেমের টানে ছুটে এসেছে। ভাবতেই ভালো লাগছে। সকাল থেকেই তারা বিদেশি নতুন বউকে দেখতে বাড়িতে ভিড় করছে। ভাষার কারণে কিছু বুঝানো যাচ্ছে না। কোনো কিছু জানতে চাইলে ছেলে বউকে বুঝিয়ে দিচ্ছে। এতে সে বেশ আনন্দ প্রকাশ করছে।ইমরান হোসেন খান জানান, চলতি বছরের জানুয়ারির দিকে ফেসবুকের মাধ্যমে তার সাথে আমার পরিচয় হয়। পরে সে পরিচয় প্রেমের সম্পর্কে গড়ায়। এরই মধ্যে একবার এ দেশে আসার চেষ্টা করলেও সমস্যা তৈরি হয়।

 

 

সে সময় ইস্তাম্বুল আটকা পড়েছিল কোভিড জটিলতায়। পরে আমরা নেপালে দেখা করে সেখানে বিয়ে করি। সে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছে। পরে তার নাম রাখা হয়েছে লায়ডা এ লোজা খান। তিনি আরও বলেন, রবিবার রাতে শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে তাকে রিসিভ করে বাড়ি নিয়ে আসি। বাড়ির অন্যন্যাদের সাথে তার সখ্য গড়ে উঠছে। ভাষাগত জটিলতার কারণে সব কিছু এখনো বুঝে উঠতে পারে না। পরে আমি বুঝিয়ে দিলে সে বুঝে।

Leave a Comment

Your email address will not be published.